শিরোনাম:
রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে আরও ১৮ জনের মৃত্যু এবার রাবির নতুন উপ-উপাচার্যকে ঘিরে বিতর্ক রাবির নতুন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু রাবি প্রশাসনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কাউকে দায়িত্ব না দেওয়ার ও দ্রুত ভিসি নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দর্শনের চর্চা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না’ ইতিহাসবিদ এ বি এম হোসেন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবস্তম্ভ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে উপাচার্যের নির্বাহী আদেশ অমান্যসহ তথ্য গোপনের অভিযোগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অফিসারদের উপস্থিতি চোখে পড়ে ‘হ্যাটস অফ টু ইউ স্যার’
১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

একসঙ্গে দুই মামলায় সুবিধা পায় আসামি

নৌপথে একই দুর্ঘটনায় দুই আইনে দুই মামলা করার কারণে সুবিধা পাচ্ছে আসামিপক্ষ। ১৯৭৬ সালের অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল অধ্যাদেশ অনুযায়ী, নৌপথে দুর্ঘটনার মামলার বিচার হওয়ার কথা নৌ আদালতে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, একই ঘটনায় নৌ আদালতের পাশাপাশি নিয়মিত বিচারিক আদালতেও ফৌজদারি অপরাধের বিচার চলছে।

এই সুযোগই নিচ্ছে আসামিপক্ষ। তারা একই ঘটনায় দুই মামলার বিচারের মুখোমুখি করার অজুহাত দেখিয়ে মামলার কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে উচ্চ আদালতে যাচ্ছে।

পদ্মায় গত সোমবার স্পিডবোট দুর্ঘটনায় ২৬ জনের মৃত্যুর পর নৌ দুর্ঘটনায় বিচারের বিষয়টি আলোচনায় এসেছে। এর আগে ২০১৪ সালে একই নৌপথে পিনাক-৬ নামের একটি লঞ্চডুবির ঘটনায় অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল অধ্যাদেশ ও ফৌজদারি দণ্ডবিধিতে দুটি মামলা হয়। হাইকোর্ট এ ঘটনায় নৌ আদালতে চলমান মামলার বিচার কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ দেন বলে জানিয়েছেন নৌ আদালতের প্রসিকিউটিং অফিসার বেল্লাল হোসাইন।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শাহদীন মালিক প্রথম আলোকে বলেন, জেনারেল ক্লজেজ অ্যাক্টের ২৬ ধারা অনুযায়ী, একই ঘটনার জন্য দুই আইনের অধীনে যদি অপরাধ হয়, তখন বিচার চলবে একটি আইনের অধীনে। জেনারেল রুলসই হলো, পরের আইনটা আগের আইনের থেকে প্রাধান্য পায়। বিশেষ আইন সব সময় প্রাধান্য পাবে।

নৌ দুর্ঘটনায় সাধারণ আইনে মামলা করার প্রবণতা ১৯৯৪ সালেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নজরে এসেছিল। ওই বছর মন্ত্রণালয়টি নৌ দুর্ঘটনায় দণ্ডবিধির সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা না করার জন্য দেশের সব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশনা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে। এতে বলা হয়, নৌ দুর্ঘটনায় নৌ চলাচল অধ্যাদেশ অনুযায়ী পদক্ষেপ না নিয়ে দণ্ডবিধির সংশ্লিষ্ট ধারায় থানা মামলা নিয়ে থাকে, যা মোটেও অভিপ্রেত নয়।

অবশ্য এখনো নৌ চলাচল অধ্যাদেশের বাইরে দণ্ডবিধির সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা করছে নৌ পুলিশ। গত সোমবার মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়ায় স্পিডবোট দুর্ঘটনার মামলাটিও দণ্ডবিধির কয়েকটি ধারায় করেছে পুলিশ। এর আগে গত বছরের ২৯ জুন বুড়িগঙ্গায় মর্নিং বার্ড নামের একটি লঞ্চ দুর্ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে দণ্ডবিধিতে মামলা করা হয়। আর নৌ চলাচল অধ্যাদেশে নৌ আদালতে মামলা করে নৌপরিবহন অধিদপ্তর।

admin

Read Previous

রাজউকের ২০ প্লট ও ৮০০ কোটি টাকার মালিক ‘গোল্ডেন মনির’

Read Next

দুটি কোম্পানির সক্ষমতার বিষয়ে মত দিল কমিটি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *