শিরোনাম:
এবার রাবির নতুন উপ-উপাচার্যকে ঘিরে বিতর্ক রাবির নতুন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু রাবি প্রশাসনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কাউকে দায়িত্ব না দেওয়ার ও দ্রুত ভিসি নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দর্শনের চর্চা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না’ ইতিহাসবিদ এ বি এম হোসেন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবস্তম্ভ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে উপাচার্যের নির্বাহী আদেশ অমান্যসহ তথ্য গোপনের অভিযোগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অফিসারদের উপস্থিতি চোখে পড়ে ‘হ্যাটস অফ টু ইউ স্যার’ ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধুর তনয়া, দেশরত্ন শেখ হাসিনা আপা, আপনি আস্থা ও ভরসার শেষ ঠিকানা’
১১ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

এবার হজের জন্য টিকার সঙ্গে বয়সের সীমাও থাকছে

করোনা মহামারির মধ্যে টানা দ্বিতীয় বছরের মতো বিদেশিদের হজে যাওয়া বন্ধ করেছে সৌদি আরব। শুধু সৌদি আরবের নাগরিক এবং দেশটিতে বসবাসকারীরা এবার হজ করার সুযোগ পাবেন।

সৌদি আরবের স্বাস্থ্য ও হজমন্ত্রী শনিবার এ ঘোষণা দিয়েছেন বলে আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

সৌদি মন্ত্রীদের ঘোষণা অনুযায়ী, এ বছর মোট ৬০ হাজার ব্যক্তি হজ করতে পারবেন। কারা হজ করার অনুমতি পাবেন, সেখানেও যাচাই–বাছাই হবে।

হজ করতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের দুরারোগ্য কোনো অসুখ থাকা যাবে না। তাঁদের বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে। অর্থাৎ ৬৫ বছরের বেশি বয়সীরা এবার হজ করার সুযোগ পাবেন না।
হজ করতে ব্যক্তিদের করোনার টিকার দুটি ডোজই নেওয়া থাকতে হবে, অথবা এক ডোজ নেওয়ার পর অন্তত ১৪ দিন পার হতে হবে। আর করোনা সংক্রমণ থেকে সেরে ওঠার পর যাঁরা টিকা নিয়েছেন, তাঁরা হজ করার সুযোগ পাবেন।
হজের বিষয়ে এই বিধিনিষেধ আরোপের পক্ষে যুক্তি হিসেবে সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ বলেছে, তারা মানুষের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে।

আগামী জুলাইয়ের মাঝামাঝিতে হজ পালন শুরু হবে। গত বছর করোনা মহামারি শুরুর আগে সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় সপ্তাহব্যাপী হজ পালনের জন্য ২৫ লাখের বেশি মানুষ সমবেত হতেন। এ থেকে প্রতিবছর ১ হাজার ২০০ কোটি মার্কিন ডলার আয় হতো সৌদি আরবের।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের অর্থনৈতিক সংস্কার পরিকল্পনা অনুযায়ী দেশটি ২০২০ সাল নাগাদ ওমরাহ ও হজের জন্য আসা মুসল্লিদের সংখ্যা দুই কোটিতে উন্নীত করতে চেয়েছিল। আর ২০৩০ সালের মধ্যে এই সংখ্যা তিন কোটিতে নিয়ে যেতে চেয়েছিল তারা। এতে ২০৩০ সাল নাগাদ শুধু হজ থেকেই ৫০ বিলিয়ন রিয়াল (১৩ দশমিক ৩২ বিলিয়ন ডলার) আয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিল দেশটি।

admin

Read Previous

ব্র্যাকের চাকরির সুযোগ

Read Next

প্রকাশিত প্রতিবেদনের ব্যাখ্যা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *