শিরোনাম:
এবার রাবির নতুন উপ-উপাচার্যকে ঘিরে বিতর্ক রাবির নতুন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু রাবি প্রশাসনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কাউকে দায়িত্ব না দেওয়ার ও দ্রুত ভিসি নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দর্শনের চর্চা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না’ ইতিহাসবিদ এ বি এম হোসেন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবস্তম্ভ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে উপাচার্যের নির্বাহী আদেশ অমান্যসহ তথ্য গোপনের অভিযোগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অফিসারদের উপস্থিতি চোখে পড়ে ‘হ্যাটস অফ টু ইউ স্যার’ ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধুর তনয়া, দেশরত্ন শেখ হাসিনা আপা, আপনি আস্থা ও ভরসার শেষ ঠিকানা’
১০ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

টুপি-আতরের বেচাকেনা ‘অর্ধেক’

চার বছর ধরে রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মার্কেটে টুপি–আতর বিক্রি করে আসছেন তরুণ ব্যবসায়ী ফয়েজ উল্লাহ। তাঁর সবচেয়ে বেশি বেচাকেনা হয় ঈদের সময়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে গত পবিত্র ঈদুল ফিতরের সময় দোকানপাট বন্ধ ছিল। আশা ছিল, এই ঈদে ভালো বেচাকেনা হবে। তাই ধারদেনা করে দোকানে টুপি–আতর তুলেছিলেন বেশ। কিন্তু বেচাকেনা জমেনি। অন্যান্য ঈদের সময় যে বেচাকেনা হয়, তার অর্ধেকও বিক্রি করতে পারেননি ফয়েজ উল্লাহ।


ফয়েজ উল্লাহর মতো অবস্থা সেখানকার অন্য ব্যবসায়ীদেরও। ব্যবসায়ীরা বলছেন, টুপি–আতর সারা বছর বিক্রি হয়। তবে প্রায় ৮০ ভাগ বেচাকেনা হয় ঈদের সময়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে গত দুই ঈদে ব্যবসা হয়নি। এবারও বেচাকেনা তেমন না হওয়ায় টুপি–আতর ব্যবসায়ীরা ভালো নেই।

বাংলাদেশ আতর–টুপি বহুমুখী সমবায় সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা যারা বায়তুল মোকাররম মসজিদ মার্কেটে টুপি, আতর, জায়নামাজসহ অন্যান্য সামগ্রী বিক্রি করে আসছি, তারা ভালো নেই। সারা বছর সেভাবে বেচাকেনা হয় না। ঈদের আগে টুপি–আতর বেচাকেনা বহুগুণ বেড়ে যায়। কিন্তু এবার বেচাকেনা সেভাবে হচ্ছে না।’ তিনি জানান, দেশে টুপির বাজার ১০০ কোটি টাকার।

ব্যবসায়ীদের কথার সত্যতা মিলল মার্কেট ঘুরে। গতকাল মঙ্গলবার টুপি–আতরের প্রধান মার্কেট বায়তুল মোকাররম ঘুরে দেখা গেল, অন্য ঈদের সময়ের তুলনায় ক্রেতাদের ভিড় কম। সেখানে কথা হয় টুপি কিনতে আসা মোজাম্মেল হকের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘করোনায় আয় কমে গেছে। তবু ছেলের জন্য নতুন জামাকাপড় কিনেছি। নতুন টুপিও কিনেছি।’
বায়তুল মোকাররম মার্কেটের ২১৮টি দোকানে দেশি–বিদেশি নানা ধরনের টুপি, আতর, জায়নামাজ, তসবিসহ বিভিন্ন পণ্য বিক্রি হয়।

admin

Read Previous

ঈদের পর আরেকটি ঢেউয়ের আশঙ্কা

Read Next

ঢাকার উদ্যানে গাছ আর ইট–পাথর সমানে সমান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *