শিরোনাম:
এবার রাবির নতুন উপ-উপাচার্যকে ঘিরে বিতর্ক রাবির নতুন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু রাবি প্রশাসনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কাউকে দায়িত্ব না দেওয়ার ও দ্রুত ভিসি নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দর্শনের চর্চা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না’ ইতিহাসবিদ এ বি এম হোসেন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবস্তম্ভ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে উপাচার্যের নির্বাহী আদেশ অমান্যসহ তথ্য গোপনের অভিযোগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অফিসারদের উপস্থিতি চোখে পড়ে ‘হ্যাটস অফ টু ইউ স্যার’ ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধুর তনয়া, দেশরত্ন শেখ হাসিনা আপা, আপনি আস্থা ও ভরসার শেষ ঠিকানা’
১১ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বাউফলে মৃত দেখিয়ে প্রতিবন্ধী নারীর ভাতা বন্ধ

জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখিয়ে এক প্রতিবন্ধী নারীর ভাতা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনা ঘটেছে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার সমাজসেবা অধিদপ্তরে।

ওই প্রতিবন্ধী ব্যক্তির নাম মোসা. পুতুল। বয়স ২৫ বছর। জন্মগতভাবে শারীরিক প্রতিবন্ধী তিনি। হাঁটাচলা ও কথা বলতে পারেন না তিনি। তিনি উপজেলার কাছিপাড়া ইউনিয়নের কারখানা গ্রামের বাসিন্দা মো. আবদুর রাজ্জাক গাজীর মেয়ে।

আজ শনিবার দুপুরে সরেজমিন ওই বাড়িতে দেখা যায়, পুতুল শুয়ে আছেন। দেখলেই বোঝা যায়, অন্যের সহযোগিতা ছাড়া তিনি কিছুই করতে পারেন না।

পুতুলের বড় বোন মোসা. আয়েশা বলেন, ২০০৬ সাল থেকে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের কারখানা শাখার মাধ্যমে নিয়মিত ভাতা পেয়ে আসছিলেন পুতুল। সাত-আট মাসের ভাতা এক সঙ্গে উত্তোলন করতেন তিনি। গত বছরের মাঝামাঝি সময় ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারেন, ভাতার টাকা পুতুলের হিসাব নম্বরে জমা হয়নি। তখন কেউ কেউ বলেন, অপেক্ষা করেন একসঙ্গে জমা হবে। সম্প্রতি আবার ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারেন, টাকা জমা হয়নি। তাই বিষয়টি জানার জন্য গত বৃহস্পতিবার উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ে যান তিনি। সেখানে গিয়ে দেখতে পান, ভাতাভোগীর তালিকায় পুতুল ২০১৯ সালের ১ জুলাই মারা গেছেন।

কাছিপাড়া আবদুর রশিদ মিয়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক আবু হাসান ওরফে মিরন বলেন, একজন সুবর্ণ নাগরিক ও তাঁর পরিবারের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করা হয়েছে। যাঁরা একজন জীবিত ব্যক্তিকে মৃত বানিয়ে ভাতা বন্ধ করে দিয়েছেন, তাঁদের শাস্তি হওয়া প্রয়োজন।

স্থানীয় কাছিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সংশ্লিষ্ট ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য রিপন সিকদার বলেন, পুতুল জীবিত। অথচ তাঁকে মৃত দেখিয়ে ভাতা বন্ধ করে দেওয়া খুবই দুঃখজনক।

ইউপি চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ‘ঘটনাটি কীভাবে হলো, বলতে পারছি না। তবে পুতুল জীবিত আছেন।’

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ‘মারা যাওয়ার তথ্য বা নতুন প্রতিবন্ধী তালিকাভুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে ইউনিয়ন ভাতা বাছাই কমিটি। যে কমিটির সভাপতি হলেন ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের সবাই ওই কমিটির সদস্য। এরপরও কীভাবে এমন ভুল হয়েছে, তা আমার বোধগম্য নয়। তবে বিষয়টি জানার পর তাঁকে (পুতুল) তিন মাসের ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। খুব শিগগির বাকি ১৫ মাসের টাকা পাওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।’

admin

Read Previous

নান্দাইলে মহাসড়কের পাশে পড়ে থাকা লাশটি কার?

Read Next

ঘরে নুসরাতের মরদেহ, পালিয়েছেন ‘পুলিশ পরিচয়’ দেওয়া স্বামী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *