শিরোনাম:
রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে আরও ১৮ জনের মৃত্যু এবার রাবির নতুন উপ-উপাচার্যকে ঘিরে বিতর্ক রাবির নতুন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু রাবি প্রশাসনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কাউকে দায়িত্ব না দেওয়ার ও দ্রুত ভিসি নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দর্শনের চর্চা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না’ ইতিহাসবিদ এ বি এম হোসেন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবস্তম্ভ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে উপাচার্যের নির্বাহী আদেশ অমান্যসহ তথ্য গোপনের অভিযোগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অফিসারদের উপস্থিতি চোখে পড়ে ‘হ্যাটস অফ টু ইউ স্যার’
১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় রাজশাহীতে এক সপ্তাহে ১৩৭ মামলা ॥ জরিমানা দেড় লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজশাহী শহরে সর্বাত্মক লকডাউনের প্রথম সপ্তাহে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ১৩৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ সময়ে জরিমানা করা হয়েছে দেড় লাখের বেশি টাকা। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি না মানায় দু’জনকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। রাজশাহী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কাউছার হামিদ শুক্রবার দুপুরে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে রাজশাহী নগরে গত শুক্রবার বিকেল ৫টা থেকে শুরু হওয়া প্রথম দফার লকডাউনের সাত দিন গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টায় শেষ হয়েছে। শহরের করোনা পরিস্থিতির আশাব্যঞ্জক উন্নতি না হওয়ায় গত বুধবার রাতে সর্বাত্মক লকডাউন আরও সাত দিন বৃদ্ধি করা হয়েছে। দ্বিতীয় দফায় বর্ধিত এই লকডাউন চলবে ২৪ জুন দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ কাউছার হামিদ বলেন, সর্বাত্মক লকডাউন চলাকালে সরকারের ঘোষিত স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করার অভিযোগে দণ্ডবিধি-১৮৬০ এবং সংক্রামক রোগপ্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ, নির্মূল আইন-২০১৮ সালের আইনে ১৩৭ জন ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এসব মামলায় জরিমানা করা হয়েছে ১ লাখ ৬৩ হাজার ১০০ টাকা। কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে দু’জনকে। একই সময়ে অসচ্ছল ৪ হাজারের বেশি মানুষের মাঝে সচেতনতার অংশ হিসেবে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

মোহাম্মদ কাউছার হামিদ আরও বলেন, সর্বাত্মক লকডাউন চলাকালে বিধিনিষেধ অনুযায়ী জরুরি ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দোকানের বাইরে কেউ দোকানপাট খুলতে পারবে না। এ সময়ে অপ্রয়োজনে কেউ বাইরেও বের হতে পারবে না। জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলেও মাস্ক পরতে হবে, স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। কিন্তু লক্ষ্য করা গেছে, এই সময়েও কেউ কেউ দোকান খুলেছে। তাদের জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া যাঁরা মাস্ক পরেননি কিংবা স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করেছেন, তাঁদেরও মামলা দেওয়া হয়েছে, কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

লকডাউনের সাত দিনে মানুষের মাঝে মাস্ক পরার প্রবণতা বেড়েছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, তবে কেউ কেউ ছিলেন, যাঁরা মাস্ক পরেননি। তাঁদের কেউ মাস্ক আনতে ভুলে গেছেন, খুলে হাতে রেখেছেন, পকেটে রেখেছেন। আবার যাঁদের মাস্ক নেই, কিনেও পরতে পারেন না, তাঁদের জেলা প্রশাসন থেকে মাস্ক দেওয়া হয়েছে।

admin

Read Previous

রাজশাহীতে গভীর রাতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ছড়ানোর চেষ্টা

Read Next

সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশিদের জমা প্রায় ৫ হাজার ৪০০ কোটি টাকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *