শিরোনাম:
রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে আরও ১৮ জনের মৃত্যু এবার রাবির নতুন উপ-উপাচার্যকে ঘিরে বিতর্ক রাবির নতুন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু রাবি প্রশাসনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কাউকে দায়িত্ব না দেওয়ার ও দ্রুত ভিসি নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দর্শনের চর্চা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না’ ইতিহাসবিদ এ বি এম হোসেন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবস্তম্ভ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে উপাচার্যের নির্বাহী আদেশ অমান্যসহ তথ্য গোপনের অভিযোগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অফিসারদের উপস্থিতি চোখে পড়ে ‘হ্যাটস অফ টু ইউ স্যার’
১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

রাজশাহী শহরের টিকাপাড়া সড়কে বছরজুড়ে খানাখন্দ!

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বৃষ্টি হলেই রাজশাহী মহানগরীর সাগরপাড়া বটতলার মোড় থেকে টিকাপাড়া-মোহাম্মদপুর সড়কের ওপর হাঁটু পর্যন্ত জমে পানি। এ সড়কের আধা কিলোমিটারের মধ্যেই মসজিদ ও গোরস্থান। কিন্তু বছরজুড়ে খানাখন্দের কারণে এই সড়ক দিয়ে চলাচল খুব কষ্টকর হয়ে উঠেছে।

এলাকাবাসী বলছেন, সড়কটির খানাখন্দ দীর্ঘদিনের। প্রতি বর্ষায় এই সড়ক আরও ক্ষতিগ্রস্থ হয়। কিন্তু সড়কটি প্রতিবছর মেরামত বা সংস্কার করা হলেও তা দীর্ঘস্থায়ী হয় না। বর্ষাকাল বাদেও বছরজুড়ে সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী থাকছে।

তারা আরও জানায়, প্রতিবছরই সড়কটি সংস্কার করে সিটি করপোরেশন। কিন্তু ছয় মাস না যেতেই আবারও সড়কটি খানাখন্দে বেহাল হয়ে যায়। ২০২০ সালে সড়কটি সংস্কারে কোটি টাকা ব্যয়ের পর এবারও সড়কটি সংস্কারে দরপত্র আহ্বান ও ঠিকাদার নিয়োগ করা হয়েছে। কিন্তু সংস্কার কাজ এখনো শুরুই হয়নি। মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু নিজের ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে লিখেছেন ‘চীনের দুঃখ হোয়াংহো আর রাজশাহীর দুঃখ টিকাপাড়া গোরস্থানের রাস্তা। লজ্জাও লাগে আবার দুঃখ লাগে।’

রাসিক সূত্র বলছে, মহানগরীতে সিটি করপোরেশনের ৩৫০ কিলোমিটার সড়ক রয়েছে। উক্ত সড়কের বড় অংশ গ্যাস ও পানি সংযোগের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বর্তমান ৯৭ দশমিক ১৮ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) এলাকার হোল্ডিং সংখ্যা ৪৭ হাজার। নগরীর স্থায়ী বাসিন্দা ৪ লাখ ৯০ হাজার ৩২২ জন। এর বাইরে আরও ৪ লাখ মানুষ অস্থায়ীভাবে বসবাস করেন। শহরজুড়ে আছে অনিয়ন্ত্রিত যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ।

রাসিকের প্রকৌশল শাখা সূত্র জানায়, প্রতি বছরই ক্ষতিগ্রস্ত সড়কের কিছু মেরামত হচ্ছে। ড্রেন নির্মাণের কারণে টিকাপাড়া সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু হতে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। নগরীর ওই সড়কটির বেশিরভাগ জুড়ে গ্যাস ও পানি সংযোগের কারণে খানাখন্দ রয়েছে। যা সংস্কারের অপেক্ষায় রয়েছে।

সিনিয়র সাংবাদিক কাজী গিয়াস বলেন, এই সড়ক দিয়ে সাহেববাজার যাওয়া যায় না। প্রচন্ড ঝাঁকুনিতে কোমর ব্যথা হয়ে যায়। শুকনা থাকলে ধুলা আর বৃষ্টি হলে কাঁদা পানিতে কাপড় নষ্ট হয়। টিকাপাড়ার সাংবাদিক আজিজুল ইসলাম বলেন, মোহাম্মদপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোরস্থান ও মসজিদ সংলগ্ন সড়কটি দীর্ঘদিন বছরজুড়েই খানাখন্দে ভরা। সম্প্রতি সড়কটি যেনতেনভাবে মেরামত করা হয়েছিলো। বৃষ্টির পানি জমে রাস্তাটি আবার আগের অবস্থায় ফিরে গেছে।

রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, নগরীর ভাঙাচোরা সড়ক পর্যায়ক্রমে মেরামত করা হচ্ছে। কিছু সড়ক ইতোমধ্যে মেরামত করা হয়েছে। অবশিষ্ট সড়ক শিগগিরই সংস্কার বা মেরামত হয়ে যাবে। কাজের মান নিয়ে কোনো আপোষ করা হবে না। মান ভাল করতেই বর্ষায় কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

admin

Read Previous

রামেবির সাত পদ দখলে রাখা চিকিৎসকের বিরুদ্ধে সরকারি গাড়ি ব্যবহারেও দুর্নীতির অভিযোগ

Read Next

মুজিব শতবর্ষে রাজশাহীতে ঘর পাচ্ছেন ৮৫৪টি পরিবারের

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *