শিরোনাম:
এবার রাবির নতুন উপ-উপাচার্যকে ঘিরে বিতর্ক রাবির নতুন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম টিপু রাবি প্রশাসনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কাউকে দায়িত্ব না দেওয়ার ও দ্রুত ভিসি নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দর্শনের চর্চা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না’ ইতিহাসবিদ এ বি এম হোসেন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবস্তম্ভ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে উপাচার্যের নির্বাহী আদেশ অমান্যসহ তথ্য গোপনের অভিযোগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী অফিসারদের উপস্থিতি চোখে পড়ে ‘হ্যাটস অফ টু ইউ স্যার’ ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধুর তনয়া, দেশরত্ন শেখ হাসিনা আপা, আপনি আস্থা ও ভরসার শেষ ঠিকানা’
৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৩শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না’

ফজলে হোসেন বাদশা এমপি

বিবৃতিতে ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি

রাবি সংবাদদাতা:

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) এবং প্রো-ভিসি পদে নিয়োগ নিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। আজ সোমবার (১২ জুলাই) রাতে এক বিবৃতিতে ফজলে হোসেন বাধশা এমপি বলেন, ‘রাবি পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ভিসি নিয়োগদান যেমন জরুরি, তেমনি এক্ষেত্রে যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তিকে নিয়োগ দেয়াটা আরও জরুরি। তবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী কোন ব্যক্তি যেন রাবি প্রশাসনে না আসে।’

এমপি বাদশা বলেন, ‘রাবি ভিসির গ্রহণযোগ্যতাও প্রশ্নাতিত হতে হবে। কোনো দায়িত্বপূর্ণ পদে বিতর্কিত ব্যক্তির নিয়োগ ঐতিহ্যবাহী এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তির যেটুকু অবশিষ্ট আছে তাকেও ধূলায় মিশিয়ে দেবে। বিতর্কিত, বিশেষ করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী বিতর্কিত ভূমিকার কাউকে ভিসি, প্রো-ভিসি নিয়োগ কেউই মেনে নেবে না। তখন বিষয়টি আর বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ বিষয় থাকবে না। এটি রাজনৈতিক বিষয়ে পরিণত হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মনে রাখা দরকার- এক সময় জেনারেল জিয়া ড. আব্দুল বারীকে ভিসি নিয়োগ দিয়েছিলেন যিনি স্বাধীনতাবিরোধী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে ছাত্রসমাজ দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলে তাকে বিদায় করেছিল।’ বাদশা বলেন, ‘রাবি মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতীক। এখানে বিতর্কিত কাউকে আনা হলে এর বিরুদ্ধে সর্বাত্মক প্রতিবাদ জানানো ছাড়া আমাদের উপায় থাকবে না। সময় থাকতেই বিষয়টি নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি দেয়া দরকার। ব্যাপারটি নিয়ে গড়িমশি মানুষকে বিস্মিত করছে।’ বিবৃতিতে এমপি বাদশা ‘রাবির সাবেক ভিসির শেষদিনে মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে দেয়া নিয়োগ এবং পদায়নের দাবিতে নিয়োগকৃতদের আন্দোলন রাবি পরিস্থিতিকে আরও জটিল করে তুলেছে’ বলেও মন্তব্য করেন।

admin

Read Previous

ইতিহাসবিদ এ বি এম হোসেন : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরবস্তম্ভ

Read Next

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও দর্শনের চর্চা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *