রবিবার ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

করোনার প্রোকোপ : ‘আর কত মাস্ক পরব’ 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজশাহীর বেশির ভাগ মানুষই মাস্ক পরা ভুলে গেছে। করোনার সংক্রমণ কমে আসার পর থেকেই তারা মাস্ক পরা ছেড়ে দিয়েছে। সভা-সমাবেশ, জনবহুল অনুষ্ঠান কিংবা হাটে-বাজারে মানুষ চলাচল করছে মাস্ক ছাড়াই। এ অবস্থায় এবার ওমিক্রন নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

গতকাল শুক্রবার ছুটির দিন সকালে নগরীর মাস্টারপাড়া কাঁচাবাজারে মানুষের উপচেপড়া ভিড় দেখা যায়। কিন্তু বেশির ভাগ মানুষেরই মুখে ছিল না মাস্ক। অথচ কয়েক মাস আগেই এই বাজারে আসা মানুষের বেশির ভাগেরই মুখে মাস্ক থাকত। প্রশাসনের পক্ষ থেকে তখন বিষয়টি তদারক করা হতো। স্বাস্থ্যসচেতনতায় এখন আর কোনো কার্যক্রম চোখে পড়ে না।

করোনার ডেলটা ধরনের সংক্রমণের পর গত বছরের জুনে রাজশাহীতে নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে ৫০ শতাংশ মানুষেরও রিপোর্ট পজিটিভ হয়েছে। ধীরে ধীরে তা কমে আসে। গত অক্টোবর, নভেম্বর-ডিসেম্বরেও রাজশাহীতে করোনার সংক্রমণের হার কোনো কোনো দিন শূন্যে নেমেছিল।

এখন আবার কয়েক দিন ধরে সংক্রমণ বাড়ছে। সবশেষ বৃহস্পতিবার রাজশাহীর ১৭৫টি নমুনা পরীক্ষায় ২১টি পজিটিভ পাওয়া গেছে। সংক্রমণের হার ১২ শতাংশ। কিন্তু স্বাস্থ্যসচেতনতা বাড়ছে না, বরং কমছে।

গতকাল শুক্রবার মাস্টারপাড়া কাঁচাবাজারে সবজি বিক্রি করছিলেন খলিল মিয়া। মাস্ক না পরার কারণ জানতে চাইলে বলেন, ‘করুনা তো এখন আর নাই। আর ঠান্ডার দিনে মাপলার পরছি। মাস্ক পরা যায় না।’

বাজার করতে আসা ষাটোর্ধ্ব জাহিদুল ইসলামও মাস্ক পরেননি। তিনি বলেন, ‘আমি তো দুই ডোজ টিকা নিয়েছি। এখন মাস্ক না পরলেও চলে। আর কত মাস্ক পরব!’

রাজশাহীর বিভিন্ন সভা-সমাবেশ, সামাজিক অনুষ্ঠান কিংবা জনবহুল স্থানগুলোতেও এখন বেশির ভাগ মানুষকে মাস্ক পরতে দেখা যাচ্ছে না। কিছুক্ষণ পর পর হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার কিংবা সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাসও আর এখন নেই। এসব অভ্যাস আবার ফিরিয়ে না আনলে সামনে বিপদ বাড়তে পারে বলে জানাচ্ছেন স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা।

রাজশাহীর সদ্য সাবেক সিভিল সার্জন ডা. কাইয়ুম তালুকদার বলেন, করোনার সংক্রমণ কমে আসার পরই মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে অসচেতনতা শুরু হয়। এখন আবার সচেতন না হলে সামনে বিপদ।

তিনি জানান, স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার ব্যাপারে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে বৃহস্পতিবার আবার একটি নির্দেশনা এসেছে। সে অনুযায়ী জেলা প্রশাসন কাজ করবে।

রাজশাহীর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাবিবুল আহসান তালুকদার বলেন, এখনো রাজশাহী বিভাগে ওমিক্রন শনাক্ত হয়নি। তবে করোনার শনাক্তের সংখ্যা একটু বেড়েছে। এখন পরীক্ষা কম হওয়ার পরেও শনাক্তের হারটা বেশি হচ্ছে।

সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এখন আবার সতর্ক হতে হবে। আগের নিয়মকানুন, স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। স্থানীয় একটি মিটিংয়েও এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আবার স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য রাজশাহীতেও কড়াকড়ি শুরু করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

রাজশাহী বোর্ডে ‘ফেল’ থেকে ‘এ প্লাস’ পেল ১৮ শিক্ষার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক  সাদিকুন নাহার এসএসসি পরীক্ষা খুব ভালো দিয়েছিল। পরীক্ষায় ভালো ফল প্রকাশের অপেক্ষা ছিল তার, কিন্তু ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর দেখা গেল, পদার্থবিজ্ঞানে সে

রাজশাহীতে সন্ধ্যা নামতেই বাড়ছে শীতের তীব্রতা

নিজস্ব প্রতিবেদক সকাল-সন্ধ্যায় বেশি শীত অনুভূত হচ্ছে রাজশাহীতে। তবে তুলনামূলক সন্ধ্যায় বেশি শীত অনুভূত হচ্ছে। শীতের কারণে সন্ধ্যার পরে নগরীর সড়কে মানুষের উপস্থিতি তুলনামূলক কমেছে।

রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার উপসর্গ নিয়ে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। আজ শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকালে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল

রাজশাহী বিভাগে করোনা শনাক্ত হার বেড়ে ২৯

নিজস্ব প্রতিবেদক  রাজশাহী বিভাগে বৃহস্পতিবার সকাল আটটা থেকে শুক্রবার সকাল আটটা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ২৯ দশমিক ০৩ শতাংশে পৌঁছেছে। এর আগের ২৪ ঘণ্টায়

রাজশাহীতে ট্রাক-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় বালুবাহী ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল চালক এক কিশোর নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে মোটরসাইকেলে আরোহী

পুলিশের দেয়া শীতবস্ত্র পেলেন রাজশাহীর ৪০০ মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক  রাজশাহী নগরীর ৪০০ জন নিম্ন আয়ের মানুষ ও প্রতিবন্ধীকে পুলিশের পক্ষ থেকে একটি করে কম্বল দেওয়া হয়েছে। রাজশাহী নগর পুলিশের (আরএমপি) রাজপাড়া থানার